fbpx

আর্টিকেল রাইটিং টুল – Hemingway

একটা মজার ঘটনা দিয়ে শুরু করি। একটা সময় যখন নতুন নতুন ব্লগিং শুরু করলাম, তখন মনে হত, ইংরেজিতে যত আনকমন শব্দ ব্যাবহার করা যাবে, আমার ইংরেজি তত স্মার্ট মনে হবে। মনে হবে আমি ইংরেজি অনেক ভাল পারি। উদাহরনস্বরূপ, আমি হয়ত তখন smart শব্দটি ব্যাবহার না করে তার সমার্থক শব্দ খুঁজতাম। আমি বেশির ভাগ সময় সমার্থক শব্দ খোজার জন্য thesaurus.com ব্যাবহার করতাম। এখন Smart এর সমার্থক শব্দ কি হতে পারে, যা একটু ভাবগম্ভীর মনে হবে, অথবা বেশির ভাগ মানুষ সেই শব্দটার সাথে পুর্ব পরিচিত থাকবে না। এমন শব্দ বাছাই করতে পারা মানেইতো আমি বেশি ইংরেজি জানি।

আমি হয়তো নিচের মার্ক করা যেকোন একটা শব্দ ব্যাবহার করতাম। আর মনে মনে খুশি লাগতো। কিন্তু সময় বাড়ার সাথে সাথে বুঝতে পারলাম, এইটা আসলে ভুল। আমার লেখা যত সহজে পড়া যাবে, বুঝা যাবে এবং চোখ বুলানো যাবে, আমার পাঠক ততই বাড়বে। কেননা একজন ব্লগার হিসেবে আমার কাজই হচ্ছে আমার পাঠকদের সাহায্য করা। তার পথচলাকে আরও সহজ করা। আমার লেখার অর্থই যদি পাঠকরা বুঝতে না পারে তাহলে কি তাদেরকে ধরে রাখা সম্ভব হবে?

Content Writing

যাইহোক আজকের ব্লগ পোষ্টের মূল টপিক আসলে শব্দ বাছাই নিয়ে না, মূল টপিক হচ্ছে একটা টুল যা আপনার ব্লগিং এক্সপেরিয়েন্স পরিবর্তন করে দিতে পারে। টুলটির নাম হচ্ছে Hemingway.

অনেক বড় বড় ব্লগার / রাইটার এই টুলটা ব্যাবহার করেন। এই টুলের মূল ফাংশনালিটি হচ্ছে সেন্টেন্সের লেংথ কাউন্ট করা। রিসার্চ থেকে দেখা গেছে ছোট ছোট সেন্টেন্স মানুষ সহজেই পড়তে পারে এবং সাচ্ছন্দ বোধ করে। একটা উদাহরন দেই।

Search Engine Journal

এটা সার্চ ইঞ্জিন জার্নাল থেকে নেয়া একটা আর্টিকেলের অংশ। সেন্টেন্স স্ট্রাকচারটা খেয়াল করেন। অকারনে একে খুব বেশি লম্বা করা হয়নি। যার ফলে ন্যাটিভ এবং নন ন্যাটিভ সবার জন্যই কন্টেনটি পড়া এবং স্ক্যান করা সম্ভব হচ্ছে। তবে সবার লেখার প্যাটার্ন এক না, অনেকেই হয়ত লম্বা লম্বা সেন্টেন্স ব্যাবহার করে। তবে বেশির ভাগ জনপ্রিয় ব্লগারকেই আমি দেখেছি ছোট সেন্টেন্স ব্যাবহার করতে।

Hemingway

উপরের স্ক্রীনশটটা দেখুন। এখানে আমি আমার লাস্ট ব্লগ পোষ্টের কিছু কন্টেন্ট পেস্ট করেছি আপনাদের দেখানোর জন্য। এখানে সর্বমোট ১৮ টি সেন্টেন্স ছিল। আমার সেন্টেন্স স্ট্রাকচারের উপর ভিত্তি করে তারা আমাকে একটা মার্কিং দিয়েছে। আমার সেন্টেন্স গুলার মধ্যে তিনটা সেন্টেন্স কিছুটা কঠিন। তাই আমি ওটাকে পুনরায় চোখ বুলাতে পারি। চেষ্টা করতে পারি এটাকে আরো সহজপাঠ্য করা যায় কিনা।

এছাড়াও এই টুল আপনার ব্যাবহার করা পেসিভ ভয়েসের সংখ্যা মার্ক করে দেখাবে। বেশির ভাগ ব্লগার প্যাসিভ ভয়েসে না লিখতে উৎসাহিত করে । যদিও এটা কোন গ্রামাটিকাল ভুল না, তবে বেশির ভাগ ব্লগারের মতে, একটিভ ভয়েসে লেখা কনটেন্ট পাঠকের মনোযোগ বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারে।

এছাড়াও এই টুল মাঝে মাঝে আপনাকে কিছু শব্দকে রিপ্লেস করতে সাজেস্ট করবে। আমি যদিও এই অংশটিকে তেমন গুরুত্ব দেই না কেননা তাদের সাজেস্ট করা সব নিয়ম অনুসরণ করলে বাস্তবিক অর্থেই কন্টেন্টের রিডএবিলিটি নষ্ট হয়ে যায়। সব টুলেরই কিছু লিমিটেশন থাকে এবং এটিও তা থেকে মুক্ত নয়।

তাই আপিনি যদি HeminWay ব্যাবহার করেন, তাহলে প্যাসিভ ভয়েস এবং ওয়ার্ড রিপ্লেসমেন্ট নিয়ে খুব বেশি না ভাবলেও চলবে। শুধু সেন্টেন্সের লেংথ-এ পারফেকশন নিয়ে কাজ করতে পারেন।

ডুপ্লিকেট কন্টেন্ট এবং এসইও সম্পর্কে জানতে এই পোষ্টটি পড়তে পারেন

এছাড়াও আরো সব দরকারি আপডেট পেতে আমার ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করতে পারেন।