fbpx

কন্টেন্ট তৈরির সাত সতের – পর্ব ১

সোশ্যাল চ্যানেল অথবা আপনার ওয়েবসাইট থেকে কি আপনি নিয়মিত সেল জেনারেট করতে পারছেন?

নাকি স্ট্রাগল করছেন?

নিয়মিত কন্টেন্ট তৈরি করছেন তো?

বর্তমান সময়ে ওয়েব থেকে সেল জেনারেট করার জন্য সবচাইতে ইফেক্টিভ হাতিয়াড় হচ্ছে কন্টেন্ট। ইনফরমেশনের এই যুগে কনভার্শন ফ্রেন্ডলি কন্টেন্ট তৈরি করতে না পারলে আসলে সেল জেনারেট করা কঠিন। শুধু সেল জেনারেট করা না, নিজের ব্রান্ড ভ্যালু তৈরি করার জন্যও আপনার প্রমোশনাল এবং এডুকেটিভ কন্টেন্ট তৈরি করতে হবে।

তারমানে প্রথম শর্ত হচ্ছে কন্টেন্ট তৈরি করা। এবার যখন আপনি বুঝলেন কন্টেন্ট তৈরি করতে হবে তখন আপনাকে দ্বিতীয় ধাপ নিয়েও ভাবতে হবে। আর তা হচ্ছে কোয়ালিটি কন্টেন্ট, যা এঙ্গগেইজমেন্ট তৈরি করতে পারে। আপনাকে স্টাডি করতে হবে, এক্সপেরিমেন্ট করতে হবে। আপনার টারগেট অডিয়েন্সের জন্য কি ধরনের কন্টেন্ট তৈরি করা উচিত। তাদের জন্য লিখার ধরন কেমন হওয়া উচিত। কি ধরনের টুল ব্যাবহার করা উচিত ইত্যাদি। এখানে কিছু কন্টেন্ট তৈরির টুল সম্পর্কে জানতে পারবেন।

কন্টেন্ট তৈরির ক্ষেত্রেও আবার বিভিন্ন ধরনের স্ট্র্যাটেজি নেয়া যায়। এরকম দুইটা স্ট্র্যাটেজি এখানে পাবেন।

অন্যে যে কোন কিছুর মতই কন্টেন্টের ক্ষেত্রেও ফাস্ট ইম্প্রেশন গুরুত্ব পুর্ন। আপনার কন্টেন্টের প্রথম কয়েক লাইন আসলে ডিসাইড করবে আপনার ভিজিটর কন্টিনিউ করবে নাকি না। অন্যান্য যে কোন সময়ের চাইতেও এখন কম্পিটিশন অনেক বেশি। কেননা ওয়েবে যে কোন টপিকের উপরেই অনেক বেশি কন্টেন্ট এক্সিস্ট করছে। কাস্টমারের হাতে এখন অনেক বেশি অপশন এভেইলেবল।

কন্টেন্টকে প্রানবন্ত করার জন্য সব সফল ব্লগার / রাইটাররাই কিছু ট্রিক্স এপ্লাই করে থাকে। তারমধ্যে অন্যতম হচ্ছে প্রশ্ন করা। তারা তাদের ব্লগ পোষ্ট অথবা ল্যান্ডিং পেইজের কন্টেন্ট প্রশ্ন করে শুরু করে থাকে।

আমরা একজন ভিজিটর হিসেবে যখন এরকম প্রশ্ন দেখে থাকি, নিজের অবচেতন মনেই একটা ধারনা চলে আসে যে এই পোষ্টে এই প্রশ্নের উত্তর রয়েছে। এবং আমরা উত্তর খোজার জন্য পড়তে থাকি।

ওয়েবের বেশির ভাগ কন্টেন্ট আসলে কোন না কোন ভাবে আমাদের কোন না কোন প্রবলেম সল্ভ করে থাকে। অন্য কথায় বলতে গেলে আমাদের মনের ভিতরে থাকা প্রশ্নটার উত্তর হয়ে থাকে ব্লগ পোষ্ট।

যেমন ধরুন

আপনি কি অনলাইনে টাকা কামাতে চান?

অনলাইনে টাকা কামাতে চাইলে আপনার প্রথমেই জানতে হবে অনলাইনে টাকা কামানোর উপায় গুলো কি? কিভাবে আপনি একটা ওয়েব সাইট থেকে ঘড়ে বসেই টাকা কামাতে পারবেন। তার জন্য আপনাকে নিচের দেখানো প্রসিডিউর গুলো ফলো করতে হবে।

একটু খেয়াল করে দেখেন, আপনি কিন্তু নিজের অজান্তেই উপরের লিখা গুলোর সাথে এঙ্গগেইজ হয়ে গিয়েছেন।

যাই হোক, আপনি যদি এই সেক্টরে নতুন হয়ে থাকেন এবং টাকা কামানোর হাইপ নিয়ে এক্সাইটেড অথবা কনফিউজড হয়ে থাকেন, এই পোষ্টটি পড়তে পারেন।

এবার কিছু উদাহরন দেই।

খুবই অভিজ্ঞ এবং পপুলার ব্লগার নেইল পাটেলের রিসেন্ট ব্লগ পোস্টের কিছু স্ক্রিনশট

 

socialmediaexaminer.com ইন্টারনেট মার্কেটিং ওয়ার্ল্ডের জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট। আপনি যদি তাদের কন্টেন্ট গুলো একটু দেখেন, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখবেন তারা প্রশ্ন দিয়েই শুরু করে থাকে তাদের ব্লগ পোষ্ট গুলো

তবে এটাও মাথায় রাখতে হবে প্রশ্নটি যাতে রিলেভেন্ট হয়। অথবা একদম মুল টপিকের উপরেই হয়ে থাকে। আমরা অনেকেই অপ্রয়োজনিও কথা দিয়ে কন্টেন্ট ভড়ে ফেলি। কিন্তু বেস্ট প্র্যাকটিস হচ্ছে শর্ট এবং সিম্পল রাখা। যতটুকু সম্ভব পয়েন্টের উপর থাকা।

প্রশ্নকি একটা করবো নাকি একাধিক?

একাধিক প্রশ্ন করা যেতে পারে, আমি অনেক ব্লগ পোস্টেই দেখেছি একাধিক প্রশ্ন দিয়ে শুরু করতে। তবে তা অবশ্যই রিলেভেন্ট হতে হবে। অথবা একটা ফ্লো মেইন্টেইন করতে হবে। উদাহরন দিলে এটা অনেকটা এমন দাঁড়ায়।

আপনি কি ইনবাউন্ড মার্কেটিং স্কিল ডেভেলপ করতে চাচ্ছেন? – ব্রড

সোশ্যাল মিডিয়াতে থেকে লিড জেনারেট করতে চাচ্ছেন? – কিছুটা স্পেসিফিক

আপনার পন্য অথবা সার্ভিস সেল করতে চাচ্ছেন। – অনেকটাই স্পেসিফিক।

এই পোষ্টে আমি দেখাবো আপনি কিভাবে আপনার ইনবাউন্ড মার্কেটিং স্কিল ডেভেলপ করবেন এবং কিভাবে তার বাস্তব সম্মত প্রয়োগ করবেন যাতে আপনার পন্য সেল করা যায় (প্রশ্ন করার পরের লাইনেই এই ব্লগ পোস্টের মাধ্যমে আপনি কি ধরনের সমাধান দিতে যাচ্ছেন তার একটা সামারি দিতে পারলে রিডার ধরে রাখতে সুবিধা হয়ে থাকে)।

যারা শুধু পড়েই যাচ্ছেন, কিন্তু কন্টেন্ট তৈরি করা নিয়ে ভাবছেন না, অথবা কাজ করছেন না তারা কিন্তু নিজের অজান্তেই অনেক পিছিয়ে পড়ছেন। তাই কাজে লেগে পড়ুন।