শুরু করার রোডম্যাপ আঁকবেন যেভাবে

Self Assessment

গত ৮ বছরের বিজনেস এবং গত এক বছরের মেন্টরশিপ জার্নিতে আমার অনেকের সাথেই পরিচয় হয়েছে যারা আসলে ঠিক পরিস্কার ধারনা রাখে না যে তারা আসলে কি চায় কেন চায় এবং কিভাবে চায়! তারচাইতে বড় সমস্যা হচ্ছে তারা আসলে নিজের সম্পর্কেও খুব বেশি পরিস্কার ধারনা রাখেনা। যার ফলস্রুতিতে তারা আসলে হুজুগের সাথে তাল মেলায় এবং পরবর্তিতে ফাস্ট্রেটেড হয়ে যায়।

আবার যারা ধারনা রাখেন তারাও আসলে ফোকাস হাড়িয়ে ফেলেন। নিজেকে রি-ডিস্কভার করতে হয় মাঝে মাঝে। তখন এই ধরনের পোস্ট গুলো নিজেকে আবার ফিরে পেতে সাহায্য করে। আমি নিজেও ফোকাস হাড়ালে আমার লিখা পুরানো পোস্ট গুলো পড়ি যা আমাকে ফোকাস ফিরে পেতে সাহয্য করে।

আপনাদের অনেকেরই হয়ত মনে আছে, এই বছরের শুরুতে আমি বলেছিলাম, আমি আপনাদের জন্য পুরো গাইডলাইন রেডি করবো। তার প্রথম ধাপ হিসেবে আমি লিখেছিলাম কিভাবে গোল সেট করা উচিত। তারপরের পোস্টেই আমি আপনাদেরকে একটি টেমপ্লেট দিয়েছিলাম, যা আপনার গ্রোথ এনশিউর করবে।

এই পোস্টে আমি আপনাদেরকে সাহায্য করবো নিজেকে রিডিস্কভার করতে। খুব সাধারণ জিনিশটাকে সাধারন ভাবেই রিপ্রেসেন্ট করবো, কিন্তু ফলাফল আসবে অসাধারন।

একটি কাগজ কলম নিয়ে বসে যান এবং নিচের প্রশ্ন গুলোর উত্তর লিখুন।

আপনার বর্তমান অবস্থা কেমন?

আপনি যেই অবস্থাতেই থাকেন না কেন, সেটা হোক জব, বিজনেস অথবা পড়ালেখা। নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনি কেমন করছেন? আপনি কি আপনার পারফরমেন্সে খুশি । খুশি হলে কতটুকুন খুশি? এক থেকে পাঁচ এর মধ্যে নিজেকে মার্কিং করুন, এক হচ্ছে বাজে অবস্থা এবং পাঁচ হচ্ছে পুরাপুরি সেটিস্ফাই।

emotions

কোন কাজটি আপনি সবচাইতে ভাল পারেন?

আমি শিউর আপনি এমন অনেক কাজই আছে যা ভাল পারেন। প্রতিটা মানুষই আসলে অনেক কাজ ভাল পারে আবার অনেক কাজ পারে না। তারমানে এটা নয় যে আপনি যত কাজ ভাল পারেন সব গুলাকেই ফোকাস করে আগে বাড়বেন। তবে প্রফেশনাল লাইফ হচ্ছে অনেকটা দলগত পারফরমেন্স। আপনার নিজের ক্ষেত্রেও আসলে আপনাকে একসাথে অনেক গুলো যায়গাতে ভাল হতে হবে।

যেমন ধরেন আপনি অনেক ভাল বল করেন, কিন্তু ফিল্ডিং এ সবসময় ক্যাচ মিস করেন। দলে যায়গা ধরে রাখতে কষ্ট হবে। আবার অনেক ভাল ফিল্ডিং দেন, বোলিং ও ভাল করেন, কিন্তু টিমমেট দের সাথে মিশে চলতে পারেন না, কোচিং স্টাফদের সাথে ঝগড়া করেন। তাও দলে থাকতে পারবেন না।

এর মানে বোলিং ভাল পারাটা হচ্ছে আপনার মুল স্ট্রেংথ, কিন্তু বাকি জিনিশ গুলোকে আপনি এভয়েড করতে পারবেন না।

একই ফরমুলা অন্য ইন্ডাস্ট্রিগুলতেও। তাই আপনি যেই যেই কাজ গুলো ভাল পাড়েন তা লিখে ফেলেন। অনেক বেশি ভাল যেগুলো পাড়েন সেগুলো প্রথমে লিখেন এবং ক্রমানুসারে কম ভাল পাড়ার জিনিশ গুলো লিখতে থাকুন।

যদি উদাহরন দেই তাহলে এটা এমন হতে পারে

  • ভাল রিসার্চ করতে পারি।
  • পরিশ্রমী।
  • কথা বলতে পারি।
  • টিম ওয়ার্ক করতে পারি।
  • লিখতে পারি, ইত্যাদি।

কিভাবে বুঝলেন আপনি এই কাজগুলোই সবচাইতে ভাল পারেন?

আপনি যে এই কাজ গুলো ভাল পারেন এটা আপনি কিভাবে বুঝলেন? আপনার কোন বন্ধু বা রিলেটিভস বলেছে। টিচার, বস, টিমমেট? নাকি নিজে নিজেই ফিল করেছেন যে এটা আপনি অনেক ভাল পারেন। যদি কোন ডাটা না থাকে তাহলে বাকিদের ফিডবেক নিন। ফিডবেক নেয়ার সময় যারা সফল, যারা ভেবে চিনতে কথা বলে তাদের ফিডবেক নিন। আসে পাশে অনেককেই পাবেন যারা আসলে বুঝে না বুঝেই ফিডব্যাক দেয়। তাদের ফিডব্যাক আসলে আপনার খুব একটা কাজে আসবে না।

কিছু সফট স্কিল রি-ডিস্কভার করুন?

উপরের সেই উদাহরনটার কথা মত আবার বলতে হচ্ছে, আপনি যদিও অনেক ভাল বল করেন, তারপরেও আপনার ফিল্ডিং, কমিউনিকেশন, প্রফেশনালিসম এই সব গুলো বেপারই আপনার কেরিয়ারে জন্য গুরুত্বপুর্ন। তাই আমাদের এই ধরনের সফট স্কিল গুলোও আইডেন্টি ফাই করতে হবে। নিচে আমি কিছু প্রশ্ন দিচ্ছি যা আপনার এনালাইসিস এ সাহায্য করবে।

  • আমি কি গুছিয়ে কথা বলতে পারি?
  • নতুন মানুষের সাথে কি সহজে মিশে যেতে পারি?
  • আমি কি চেঞ্জ পছন্দ করি?
  • আমি কি অন্যের ভাল মন্দ নিয়ে ভাবি?
  • আমি কি সবকিছুর ডকুমেন্টেশন রাখি?
  • আমি কি গুছিয়ে প্রেসেন্ট করতে পারি?
  • আমি কি অন্য মানুষ কি করলো, না করলো এই জিনিশ গুলো নিয়ে বেশি ভাবি?
  • আমি কি সবার সাথে মিশে কাজ করতে পারি?
  • আমি কি অন্যের দোষ খুজে বেড়াই?

এই প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর আপনার নিজেকে রি-ডিস্কভার করতে সাহায্য করবে।

এখন কী করবো?

উপরের ধাপ গুলো শেষ হয়ে গেলে আপনি অনেকটাই পরিস্কার হয়ে যাবেন, আপনার মুল শক্তি কোথায়, সাপোর্টিভ কী আছে। কোথায় ফোকাস করা যেতে পারে আর কি এড়িয়ে চলা উচিত। নতুন কিছু শেখার ক্ষেত্রে কী শেখা যেতে পারে।

উপরের উত্তর গুলো এনালাইজ করে এবার আপনার ইন্ডাস্ট্রি বাছাই করুন। তার উপর ভিত্তি করে আপনার গোল এবং একশন প্লান রেডি করে ফেলতে পারেন। তারপর সেই ইন্ডাস্ট্রির সিনিয়র কারো সাথে কথা বলে নিতে পারেন, এতে আপনার জার্নিটা আরো একটু সহজ হয়ে যাবে।

এবার ছোট কিছু একটা দিয়ে শুরু করুন। কিন্তু আল্টিমেট গোল রাখুন বড়। যেমন ক্রিকেটে অনুর্ধ ১৪ দিয়ে শুরু করলেও গোল কিন্তু সবার জাতীয় দলই থাকে।

আপনার একশন প্লান এক্সিকিউট করার সময় আপনার মাথায় রাখতে হবে, আপনি এমন কিছু প্রতিবন্ধকতা হয়ত পাবেন, যা আসলে আপনার পক্ষে সমাধান করা সম্ভব না। এই ধরনের প্রতিবন্ধকতা আসলে আমাদের ফোকাস, মনযোগ এবং এনার্জি নষ্ট করে দেয়। সে ক্ষেত্রে আপনি আই কান্ট চেঞ্জ ইট কন্সেপ্ট ব্যাবহার করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ অনলাইন বিজনেস শুরু করার আগে যা জানা প্রয়োজন

আমার পোস্ট গুলো থেকে যদি আপনি উপকার পেয়ে থাকেন তাহলে শেয়ার করে আমাকে ইন্সপায়ার করতে পারেন। এটা আমাকে আরো বেশি বেশি কন্টেন্ট তৈরিতে উৎসাহিত করবে। আমার ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করতে এখানে ক্লিক করুন। আপনার মন্তব্য কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন।

Comments

comments

2 COMMENTS

  1. আলহামদুলিল্লাহ্‌,
    নাহিদ ভাই, আপনার ব্লগ এর প্রায় সব পোস্ট ই আমার পড়া আছে। তবে এই পোস্ট টি মনে হচ্ছে সব পোস্ট থেকে একটু বেসি ভালো লেগেছে।
    জাঝাকুমুল্লাহ। থ্যাংকস ভাইজান।

    • আপনার কমপ্লিমেন্টের জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ 🙂

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here