fbpx

যে ১১ টি কারণে আপনি সফল ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন না

সফলতা ব্যাপারটা আপেক্ষিক, কারো কারো মতে সফলতার মূল মাপকাঠি হচ্ছে টাকা, আবার কারো কারো কাছে ভিন্ন কিছু। এটাকে খুব সহজে সংজ্ঞায়িত করা কঠিন কাজ। তবে আমার মতে, আপনি যা করতে চাচ্ছেন তা করতে পারাই হচ্ছে সফলতা। ধরুন আমি চাচ্ছি সফলতার উপরে একটা ব্লগ পোষ্ট লিখবো, এবং আমি যদি তা লিখতে পারি তাহলে আমি সফল। আমি যদি চাই একটা ব্লগ পোষ্ট লিখবো এবং এই ব্লগ পোষ্টটি অনেক মানুষ পড়বে এবং শেয়ার করবে, কিন্তু লিখার পর দেখা গেল তেমন কেউ পড়ছেও না শেয়ারও করছে না, তাহলে আমি সফল নই।

প্রফেশনাল ক্যারিয়ার এর ক্ষেত্রেও সফলতার সংজ্ঞা অনেকটা একই রকম। তবে এই ক্ষেত্রে মানুষ ইচ্ছাকৃত ভাবেই হোক আর অনিচ্ছাকৃত ভাবেই হোক,  উপার্জন অথবা টাকার একটা যোগসূত্র ঠিকই তৈরি করে ফেলে। আর এই যোগসূত্রটাকে পুরাপুরি অযৌক্তিক বলাটাও ভুল হবে, হয়ত সফল হবার জন্য অনেক টাকার দরকার নেই, তবে আর্থিক সচ্ছলতা তো অবশ্যই দরকার।

বাকি সবার মত একজন ফ্রিল্যান্সারের জন্যও সফল হবার রাস্তাটা সহজ নয়, বরং কিছু কিছু ক্ষেত্রে এটা আরো কঠিন, কারন এখানে কম্পিটিশন এর মাত্রাটা অতিমাত্রায় বেশি। তাই যারা ফ্রিল্যান্সিং এর সাথে সম্পৃক্ত অথবা সম্পৃক্ত হবার কথা ভাবছেন তারা নিচের পয়েন্ট গুলো দেখে নিতে পারেন। এই স্বভাব গুলো যদি আপনার মধ্যে বিদ্যমান থেকে থাকে তাহলে আপনার জন্য ফ্রিল্যান্সিং এ সফল ক্যারিয়ার গড়া তুলনামুলক ভাবে কষ্টকর হবে।

০১#    পর্যাপ্ত ধৈর্য না থাকা
০২#    নতুন জিনিস শেখার প্রতি আগ্রহের ঘাটতি
০৩#    কম্পিউটার এর সামনে বেশিক্ষন বসে থাকলে বিরক্ত হওয়া
০৪#    সোস্যাল মিডিয়ার প্রতি অতিরিক্ত বেশি অথবা অতিমাত্রায় কম আসক্তি থাকা
০৫#    অতিমাত্রাতে শর্টকাট খোজা
০৬#    প্রতিযোগিতাকে ভয় পাওয়া
০৭#    সময়ের কাজ সময়ে শেষ না করার বদ অভ্যাস
০৮#    বিভিন্ন টুলস ব্যাবহার করার প্রতি অনাগ্রহ
০৯#    একই সময়ে একের অধিক কাজ করা এবং একাধিক জায়গায় মননিবেশ করতে না পারা
১০#   বুঝানোর এবং বুঝতে পারার অদক্ষতা
১১#   নেটওয়ার্কিং এবং রিলেশনশিপ গঠনে অদক্ষতা।

আপনি কোন ক্ষেত্রে কাজ করছেন তার উপর নির্ভর করে কিছু অতিরিক্ত দক্ষতার প্রয়োজন হবে, কারন প্রতিটি ক্ষেত্রই একটি অন্যটির চেয়ে আলাদা, তাই তাদের কাজ করার ধরন, সুবিধা অসুবিধা এক রকম হবে না। তবে উপরে প্রদত্ত এই এগারোটি পয়েন্ট মোটামুটি সব ক্ষেত্রের জন্যই প্রযোজ্য।

তাই ফ্রিল্যান্সিং এ ক্যারিয়ার শুরু করার আগে যাচাই করে নিন, কোন কোন জায়গাতে আপনার কাজ করা উচিত এবং যারা শুরু করে দিয়েছেন তারা মিলিয়ে নিন কোন জায়গাতে উন্নয়ন দরকার।

আমার অন্যান্য লিখা আপনার ইনবক্স এ পেতে নিবন্ধন করুন ইমেইলে, এবং চাইলে আমার সাথে সোস্যাল মিডিয়াতেও কানেক্টেড থাকতে পারেন। লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন।