স্কিল ডেভেলপমেন্ট, নলেজ শেয়ারিং এবং প্রোডাক্টিভিটি হ্যাক – মার্চ মাসের সামারি

ত্রিকেট খেলাতে যেমন ম্যাচ বাই ম্যাচ প্লানিং করতে হয়, ঠিক তেমনি প্রফেশনাল লাইফে একটা বড় লক্ষ অর্জন করার জন্য পুরো প্লানটাকে মাসিক ভিত্তিতে ভাগ করে নিতে হয়। আমাদের সামগ্রিক সফলতা নির্ভর করে প্রতি মাসে আমরা কতটুকু প্রডাক্টিভ ছিলাম, সে মাসের গোল আমরা কতটুকু সফল ভাবে অর্জন করতে পেরেছিলাম তার উপর।

প্রাতাষ্ঠানিক ভাবে, আমরা আমাদের কাজের স্ট্রাটেজিতে কিছু বড় ধরনের পরিবর্তন আনতে যাচ্ছিলাম। তাই মার্চ মাসটাতে আমাদের কাজের প্লান ছিল একটু ভিন্ন। তাই এই মাসটা আমাদের জন্য একটু বেশি চ্যালেঞ্জিং ছিল। আমি এই পোষ্টে মার্চ মাসের এক্টিভিটিগুলোকে সামারাইজড করবো, যাতে আমাদের এক্সপেরিয়েন্স আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

সময়কে সঠিকভাবে ব্যবহার করা

আমরা যেনে হোক আর না যেনে হোক, আমাদের সময় নষ্ট করাতে খুবই পারদর্শী। বিশেষ করে অফিস আওয়ারে তার পরিমান আরো বেড়ে যায়। আমিও এর ব্যতিক্রম নই। তাই মাসের শুরুর দিকেই একটা কাজ করি। তা হচ্ছে অফিসে আমার চোখ বরাবর যে হোয়াইট বোর্ডটা আছে, সেখানে দুটো জিনিশ এড করা। এক বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম ( যেন আমি আমার কাজ আল্লাহর নাম নিয়ে শূরু করতে পারি ) আর লিখেছি “Dont Waste Your Time” (যেন আমি ফোকাস হারালেও লেখাটা দেখার সাথে সাথে আবার কাজে ব্যাক করি )। ট্রাস্ট মি আমার প্রোডাক্টিভিটি এবং টিম প্রোগ্রেস এনসিউর করতে দুইটা জিনিসই অনেক সাহায্য করেছে ।

Productive White Board

 

ডিপার্টমেন্ট অনুসারে মাসিক লক্ষ সেট করা

প্রতিটা মাসের শুরুতেই আমাদের পরিস্কার ধারনা থাকা উচিত যে এই মাসে আমরা কি চাই। এটা আমাদেরকে ট্র্যাকে থাকতে সাহায্য করে। যেহেতু আমাদের মাল্টি টাস্কিং করতে হয়, তাই গোলটাও হতে হবে মাল্টি টাস্কিং উপযোগী। যেমন

  • কতগুলো প্রজেক্ট দরকার
  • কোন কোন সার্ভিসের প্রজেক্ট দরকার
  • নিশ সাইট (Niche site) এর গোল
  • রিসোর্স তৈরীর গোল
  • স্কীল ডেভেলপমেন্টের গোল
  • রিসার্চ গোল
  • ইত্যাদি

আমরা মাসের শুরুতেই এই গোল সেট করে তা আসানাতে এড করে দিয়েছি। তারপর সবাইকে নিয়ে বসে তার কর্ম পদ্ধতি তৈরি করে কাজ শুরু করে দিয়েছি। যার ফলে আমরা অনেক বেশি গোছানো ছিলাম এবং সঠিক ট্র্যাকে ছিলাম।

নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করা

আজ আমি যত দূর আসতে পেরেছি, তার পিছনে ইন্টারনেশনাল ব্লগার, স্পীকার সহ আরো অনেক প্রফেশনালের অবদান রয়েছে। লোকাল অনেকের কাছ থেকে সময়ে অসময়ে, ডিরেক্ট এবং ইন্ডিরেক্ট সাজেশন পেয়েছি। বাংলাদেশে হাতে গোনা অল্প কিছু মানুষ আছে যারা তাদের অভিজ্ঞতা এবংনলেজ শেয়ার করেন। কিন্তু আমি এই ট্রেন্ড ভাঙতে চাই। এলইডি বাতি আবিষ্কার কেউ একজন করে ফেলেছেন, এখন আমাদের রিসার্চ হওয়া উচিত এটাকে কিভাবে আরো বেটার করাযায়। তবে তা তখনি সম্ভব হবে, যখন এলইডি বাতি তৈরির ফর্মুলাটা কেউ একজন শেয়ার করবে। নয়ত আমার সেই আবার এলইডি বাতি তৈরি করার জন্য সময় ব্যয় করতে হবে, তারপর ইম্প্রুভমেন্টের প্রশ্ন। আমাদের দেশে তাই হয়, যেহেতু কেউ তার নলেজ শেয়ার করে না, তাই সবাই একই সমস্যা ফেস করে একটা লেভেল পর্যন্তই যেতে পারে। BITM তাদের স্টুডেন্টদের নিয়ে একটা ইভেন্ট করেছিল, যেখানে আমার একটা ৪০ মিনিটের লং সেশন ছিল তাদের কেরিয়ার রিলেটেড দিক নির্দেশনা দেয়ার জন্য। আমি আমার সাধ্যমত তাদেরকে আমার সর্বোচ্চটা দিয়েছি, এবং তাদের ফিডব্যাক অনুসারে, সেশনটা খুবই কার্যকর ছিল।

ওয়েবিনার অন বিজনেস টুলস

গত মাসের পেয়নিয়ারের ঢাকা ফোরামে একটা সেশন ছিল আমার, যেখানে আমি কথা বলেছি, গ্রো ইউর বিজনেস উইথ বিজনেস টুলস। সেশনের পর অনেকেই বলেছে, সেশনটা অনেক উপকারি ছিল। তাই আমি এর পর একই টপিক এবং প্রেজেন্টেশনের উপর একটা ওয়েবিনার করেছিলাম। সেই ওয়েবিনার যারা মিস করেছিলেন তাদের জন্য মার্চ মাসে আমি আরো একটা ওয়েবিনার করি। যারা এবারো মিস করেছেন তাদের জন্য সেইম টপিকের উপর একটা ভিডিও তৈরি করেছি। ভিডিওটা দেখে নিতে পারেন।

 

আইসিটি ডিভিশনের আমন্ত্রনে আইডিয়া এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামে একজন ‘কী নোট স্পীকার’ হিসেবে আইডিয়া শেয়ার করা

মার্চ মাসের ২৭ তারিখে আইসিটি ডিভিশন একটি আইডিয়া এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের আয়োজন করেছিল। সেখানে আমাদের প্রিয়মুখ কাশেম ভাই একটি রিসোর্স্ফুল প্রেসেন্টেশন দিয়েছিলেন। এছাড়াও মাননীয় প্রতিমন্ত্রি জুনাইদ আহমেদ পলক তার আইসিটি নিয়ে প্লানিং এর একটা ব্রিফ দিয়েছিলেন। তারপর বেসিসের সভাপতি মুস্তফা জব্বার স্যারের সভাপতিত্বে আইডিয়া এক্সচেঞ্জ ইভেন্টটি পরিচালিত হয়। যেখানে আমি একজন সিলেক্টেড স্পীকার হিসেবে আমার আইডিয়া শেয়ার করার সুযোগ পাই। আমি মূলত ডিজিটাল কন্টেন্ট, নলেজ শেয়ারিং এবং ব্যবসায়িক স্কীল ডেভেলপমেন্টের উপকারিতা এবং কিভাবে করা যায় তার উপর জোর দেই।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভিতে আইসিটি পলিসি নিয়ে কথা বলা

এছাড়াও এ মাসে আমি ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির আমন্ত্রনে তাদের একটি টিভি প্রোগ্রামে কথা বলেছি। আমি মূলত আইসিটি ডিভিশনের পলিসি নিয়েকথা বলেছি। কি ধরনের সমস্যা আমরা ফেস করছি, কিভাবে তা সমাধান করা যায় ইত্যাদি নিয়ে।

নাহিদ হাসান

Grow With Nahid ফেসবুক গ্রুপ

নলেজ শেয়ার রিলেটেড একটা ইস্যু ফেস করতাম সবসময়, আর তা হচ্ছে কোন ভাষাতে নলেজ শেয়ার করা উচিত। সার্ভিস রিলেটেড লিডের জন্য ইংরেজিতে কন্টেন্ট তৈরি করতেই হবে। আবার বাংলাদেশি মার্কেট গ্রোথের জন্য যে কন্টেন্ট তৈরি করবো তা বাংলাতেই করা উচিত। তাই আমি আমার ফেসবুক পেইজ কে আলাদাই রাখছি, এবং সেখানে সব ইংরেজি কন্টেন্ট পোষ্ট করা হবে। আর লোকাল কমিউনিটির জন্য Grow With Nahid নামে একটা ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করেছি। এই নামটা সিলেক্ট করার পিছনে আমার ব্যাবহার করা হ্যাশট্যাগটাকে আমি প্রায়রিটি দিয়েছি। ইতিমধ্যেই #GrowWithNahid হ্যাশট্যাগ ব্যাবহার করে অনেক ইফেক্টিভ কন্টেন্ট শেয়ার করা হয়েছে।

এছাড়াই স্টুডেন্ট এসেসমেন্ট প্রোগ্রাম, লাইভ ভিডিও, ইউটিউব ভিডিও, এসইও হ্যাংআউট সহ বেশ কিছু নলেজ শেয়ারিং কাজে ব্যাস্ত ছিলাম মাস জুড়ে।  এই কন্টেন্টগুলো অবশ্যই আপনাকে সামনে অগ্রসর হতে সাহায্য করবে।

Nahid BITM Assessment Program

এছাড়াও পুরো মাস জুরে আমি বেশ কিছু ইফেক্টিভ কন্টেন্ট শেয়ার করেছি ফেসবুকে। আমি তা এখানে এ্যম্বেড করে দিচ্ছি।

1# সাইকোলজিকাল প্রাইসিং

2# কমিউনিকেশন স্কীল

3# থিওরি অফ মাইন্ড

4# প্রোকাস্টিনেশন

5# ফোকাস

6# সাইকোলজিকাল ফ্যাক্ট

7# উদ্যোক্তার লাইফ

8# ফ্রী রিসোর্স
যদি দ্রুত যেতে চাও, একা যাও। যদি অনেক দূর যেতে চাও, দলগত ভাবে যাও। আমাদের ফেসবুক গ্রুপে জয়েন্ট করে আপনিও আমাদের সাথে এংগেইজ থাকতে পারেন।

Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here