fbpx

ব্রাউজার অপটিমাইজেশন- প্রোডাক্টিভিটি হ্যাক

কিছু দিন আগে কোথায় যেন শুনেছিলাম, যার হার্ডডিস্কে যত বেশি টিউটোরিয়াল সেভ করা আছে, সে ততো কম কাজ করছে বা কম শিখতে পারছে। কথাটি সত্য। টিউটোরিয়াল আমাদেরকে কোন একটা স্পেসিফিক কাজ কিভাবে করতে হয় তা জানতে সাহায্য করে। কিন্তু সফলতা তখনই আসবে যখন আমরা সেই কাজটা করার চেষ্টা করবো। মোটিভেটেড থাকবো। অরগানাইজড থাকবো। ফোকাসড থাকবো। কঠিন লক্ষ পুরন করতে হলে প্রোডাক্টিভ হতে হয়।

যেমন এই ব্লগে আমি ব্রাউজার অপটিমাইজেশন নিয়ে লিখবো। এর অনেক কিছুই আপনার জন্য প্রোডাক্টিভ। গ্যারান্টেড। কিন্তু এই ব্লগ পোষ্টটি পড়ার পর তারাই সুবিধা নিতে পারবেন যারা এটা ট্রাই করবেন। অন্যরা হয়তো পড়বেন, ইম্প্রেসড হবেন তারপর ভুলে যাবেন।

আমরা যারা অনলাইনে কাজ করি তারা আসলে সারাদিন কি করি? সারাদিন ব্রাউজারেই থাকি। এক এক জন এক এক ব্রাউজার ব্যাবহার করে থাকেন। কারো হয়তো ফায়ার ফক্স এর উপর দুর্বলতা আছেতো কারো গুগল ক্রোমের উপর।

ব্রাউজার যেটাই হোক না কেন অপটিমাইজেশন প্রসেস অনেকটাই একই রকম।

১) পিন ট্যাব

কিছু ওয়েবসাইট আছে আমরা প্রায় প্রতিদিনই ভিজিট করি। আবার কিছু ওয়েবসাইট একটু পর পরই ভিজিট করি যেমন, ইমেইল।

[যদিও আমি একটু পর পর ইমেইল চেক করাকে নিরুৎসাহিত করে থাকি। এর পেছনে যুক্তিও আছে। একটু পর পর ইমেইল চেক করা আসলে প্রোডাক্টিভিট কমিয়ে দেয়। বিস্তারিত জানতে এই পোস্টটা পড়তে পারেন।]

তবে কিছু প্রফেশনে, বিশেষ করে যারা সেলস এ বেশি সময় দিচ্ছেন অথবা কাস্টমার সাপোর্টে আছেন তাদের একটু ঘন ঘন ইমেইল চেক করতেই হয়। তাই এরকম সাইটগুলোকে পিন করে রাখতে পারেন। আবার সলিউশন সবার জন্য এক রকম নয়। তাই আপনার সাইকোলজিকাল এবং কাজের ধরনের উপর নির্ভর করবে কোন কোন সাইটগুলোকে পিন করে রাখা উচিত। তবে পিন করে রাখা ট্যাবগুলোর মধ্যে আপনার টুডু লিস্ট / প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট টুলটা রাখা রাখা যেতে পারে।

আমার সাজেস্টেড প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট টুলঃ

২) একাধিক ক্রোম বাউজার ব্যাবহার করা

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যাদের একাধিক জিমেইল আইডি ব্যাবহার করতে হয়। আর শুধু এই কারনেই তারা একাধিক ব্রাউজার ব্যাবহার করেন। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না যে শুধু ক্রোম ব্রাউজারকেই বিভিন্ন ইমেইলের জন্য সম্পূর্ণ আলাদা ভাবে ব্যাবহার করা যায়। প্রতিটি ব্রাউজারের জন্য কুকি পর্যন্ত আলাদা হয়ে থাকে। কিভাবে করবেন তা জানতে এই ভিডিও টা দেখতে পারেন।

 

৩) বুকমার্ক বারকে অরগানাইজ করা

কিছু সাইট আছে আমরা ফ্রিকুয়েন্ট ভিজিট করলেও পিন করে রাখার মতো না। সেই সাইটগুলোর জন্যই তো আসলে বুকমার্ক বার! তাই ব্রাউজারের বুকমার্ক বারটাকে অরগানাইজ করা যেতে পারে যেন গুরুত্বপূর্ণ সাইটগুলোকে চোখের সামনেই রাখা যায় এবং দরকার মত এক ক্লিকেই ব্রাউজ করা যায়। মনে রাখতে হবে প্রফেশনাল কারনেই আমরা অনেক সাইট ব্রাউজারে বুকমার্ক করে রাখি। কিন্তু সব সাইটকে ব্রাউজারের টাস্কবারে রাখা যায় না। তাই যে সাইটগুলোকে বার বার ভিজিট করতে হয় সেগুলোকেই আসলে বুকমার্ক বারে রাখা উচিত।

৪) মোমেন্টাম এপ ব্যাবহার করুন

মোমেন্টাম এপ একটি অসাধারন টুল। এটা একসাথে আপনার টুডু লিস্ট টুল হিসেবে ব্যাবহার করা যাবে আবার সবচেয়ে ইফেক্টিভ রিমাইন্ডার হিসেবেও ব্যাবহার করা যাবে। বিস্তারিত জানতে এই পোস্টটি পড়তে পারেন

আশা করি এই ছোট আর্টিকেলটি আপনাকে প্রোডাক্টিভ হতে সাহায্য করবে। আগামী ১৯ মে, শুক্রবার আমি সেলিং স্কিল ডেভেলপমেন্টের উপর একটি ক্লাস নিচ্ছি। যারা ঢাকায় থাকেন তারা ক্লাসটিতে সরাসরি অংশ নিতে পারেন, ঢাকার বাইরে যারা থাকেন তাদের জন্য অনলাইনে অংশ নেওয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে। বিস্তারিত জানতে এখানে দেখুন